জীবনযাপন

অলস জীবনযাপনে ডায়াবেটিসের ঝুঁকি

বর্তমানে নগরায়নের ফলে পরিবর্তিত জীবনযাপনের কারণে সারা বিশ্বেই ডায়াবেটিক রোগীর সংখ্যা বেড়ে যাচ্ছে। তবে বৃদ্ধির এই হার উন্নত দেশগুলোর তুলনায় অন্যান্য উন্নয়নশীল দেশের মতো বাংলাদেশেও বেশি।

টাইপ-২ ডায়াবেটিসের সম্ভাবনা বেড়ে যাওয়ার অন্যতম কারণ হচ্ছে—কায়িক পরিশ্রম না করা। মোটা বা স্থূলকার হয়ে যাওয়া, অতিমাত্রায় ফাস্টফুড খাওয়া ও কোমল পানীয় পান করা। অতিরিক্ত মানসিক চাপে থাকা। ধূমপান ও তামাক খাওয়া, গর্ভকালীন বিভিন্ন সমস্যা, যাদের বাবা-মা অথবা রক্ত সম্পর্কীয় নিকটাত্মীয়ের ডায়াবেটিস আছে এবং যাদের বয়স ৪৫ বছরের বেশি, তাদের ডায়াবেটিস হওয়ার সম্ভাবনা আছে। ডায়বেটিস সম্বন্ধে তাদের অধিক সতর্ক থাকা দরকার বলে জানান সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞরা।

আজ ২৮ ফেব্রুয়ারি শুক্রবার ডায়াবেটিস সচেতনতা দিবস ও ডায়াবেটিক সমিতির ৬৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। এ বছর দিবসের প্রতিপাদ্য—‘ইনসুলিন যার দরকার, ইনসুলিন তার অধিকার’। টাইপ-১ ডায়াবেটিক রোগীসহ যাদের জন্য ইনসুলিন অপরিহার্য, তাদের ইনসুলিনসহ ডায়াবেটিস সেবা নিশ্চিত করাই হোক আগামী দিনের অঙ্গীকার।

জনগণকে সচেতন করে তোলাই এই দিবসের লক্ষ্য। শিশুদের সাধারণত টাইপ-১ ডায়াবেটিস হয়। যাদের শরীরে একেবারেই ইনসুলিন তৈরি হয় না। এই ডায়াবেটিস নির্ণয় হওয়ার সময় থেকে সারাজীবন ইনসুলিন নিতে হয়। দিবসটি উপলক্ষে বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতি দিনব্যাপী নানা কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। সমিতির অন্যান্য অঙ্গপ্রতিষ্ঠান ও বিভিন্ন জেলায় অবস্থিত অধিভুক্ত সমিতিগুলোও এ উপলক্ষ্যে বিভিন্ন কর্মসূচি নিয়েছে।

এ উপলক্ষ্যে সকাল সাড়ে ৮টায় বারডেম কার পার্কিং থেকে মত্স্য ভবনের মোড়ে অবস্থিত রমনা পার্কের গেট পর্যন্ত একটি পদযাত্রা অনুষ্ঠিত হবে। এতে সমিতির কর্মকর্তা-কর্মচারীরা ছাড়াও সর্বস্তরের মানুষ অংশ নেবেন। সকাল সাড়ে ১০টায় বারডেম অডিটোরিয়ামে (৩য় তলা) আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে।

এতে প্রধান অতিথি থাকবেন সমাজকল্যাণ মন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ, এমপি। বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক এ কে আজাদ খানের সভাপতিত্বে এ আলোচনাসভায় বক্তব্য দেবেন সমিতির মহাসচিব মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিন ও বারডেমের মহাপরিচালক অধ্যাপক জাফর আহমেদ লতিফ।

মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন ডা. বেদৌরা জাবীন। অনুষ্ঠানে নির্বাচিত আদর্শ ডায়াবেটিক রোগীদের মধ্যে অভিনন্দনপত্র ও ক্রেস্ট প্রদান করা হবে।

এছাড়াও সকাল ৮টা থেকে ১১টা পর্যন্ত রমনা পার্ক, ধানমন্ডির রবীন্দ্র সরোবরসহ এনএইচএন ও বিআইএইচএস-এর বিভিন্ন কেন্দ্র সংলগ্ন স্থানে বিনামূল্যে ডায়াবেটিস পরীক্ষা করা হবে।

দিবসটি উপলক্ষ্যে ‘কান্তি’র বিশেষ প্রকাশনা, সচেতনতামূলক লিফলেট ও পোস্টার বিতরণেরও উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। ইব্রাহিম কার্ডিয়াক হাসপাতালে এ উপলক্ষ্যে সকাল ৯টায় হ্রাসকৃত মূল্যে হার্ট ক্যাম্পেরও আয়োজন থাকবে।

এ ছাড়া, আগামীকাল শনিবার সকাল ১১টায় বারডেম অডিটোরিয়ামে (৩য় তলা) বিশেষজ্ঞ চিকিত্সক ও রোগীদের মধ্যে আলোচনা ও প্রশ্নোত্তর পর্ব অনুষ্ঠিত হবে। উল্লেখ্য, ১৯৫৬ সালের এই দিনে জাতীয় অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ ইব্রাহিমসহ কয়েকজন বিশিষ্ট সমাজসেবক ও গণ্যমান্য ব্যক্তির উদ্যোগে সেগুনবাগিচায় বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতি প্রতিষ্ঠিত হয়।

Facebook Comments

Comment here